বুধবার, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২৫ মাঘ, ১৪২৯ | ১৬ রজব, ১৪৪৪

মূলপাতা আঞ্চলিক রাজনীতি

১০ ডিসেম্বর আ.লীগ নেতাকর্মীরা ঢাকা দখল করবে, ঘোষণা কাদেরের


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :৫ ডিসেম্বর, ২০২২ ৫:৩১ : অপরাহ্ণ
ওবায়দুল কাদের

আগামী ১০ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা ঢাকার রাজপথ দখল করবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি মহাসচিবকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেব, আমি বলতে চাই, আমাদের নেতাকর্মীরা মহানগর, পাড়া-মহল্লা, অলি-গলি, জেলা উপজেলা, থানা, ইউনিয়ন, শহর, গ্রাম সব জায়গায় সতর্ক পাহারায় থাকবে।’

আজ সোমবার দুপুরে নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ ঘোষণা দেন।

আরও পড়ুন: সারাবিশ্ব ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশের দিকে তাকিয়ে আছে: ফখরুল

জিয়াউর রহমানকে জাতীয় চার নেতা হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড বলে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পলাশীর মীরজাফর এখানে খন্দকার মোস্তাক, খুনি। ওখানে সেনাপতি ইয়ার লতিফ এখানে সেনাপতি জিয়াউর রহমান। বিশ্বাসঘাতক। জিয়াউর রহমান ১৫ আগস্টে পৃথিবীর ইতিহাসে নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডে তিনিই ছিলেন মাস্টারমাইন্ড।’

পলাশীর যুদ্ধের উদ্ধৃতি দিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা ৪৫ হাজার সৈন্য নিয়ে পরাজিত হয়, পরাজিত হবারতো কথা নয়, লর্ড ক্লাইভের সৈন্য সংখ্যা ছিল সাড়ে ৩ হাজার। অথচ দেখুন, বিজয় যখন অবশ্যম্ভাবী প্রধান সেনাপতি মীরজাফর আলী খান তার সৈন্য দলকে নীরব করে রাখে। সাড়ে ৩ হাজার ইংরেজ বাহিনী ৪৫ হাজার সিরাজউদ্দৌলার বাহিনীকে পরাজিত করলো। বাংলার স্বাধীনতা সূর্য অস্তমিত হলো। মীরজাফরের পুত্র মিরনের নির্দেশে নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে মোহাম্মদ আলী বেগ নৃশংসভাবে হত্যা করে। এটা হচ্ছে বাংলার ইতিহাস। পঁচাত্তরে দেখুন, সোয়া দুইশ বছর পর একই ষড়যন্ত্রের পুনরাবৃত্তি ঘটলো।’

আরও পড়ুন: নয়াপল্টনের বিকল্প আরামবাগে সমাবেশ করতে চায় বিএনপি

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আপনারা প্রস্তুত হন, খেলা হবে। এই ডিসেম্বরে খেলা হবে, আগামী নির্বাচনে খেলা হবে, আন্দোলনে খেলা হবে, অর্থ পাচারের বিরুদ্ধে খেলা হবে, হাওয়া ভবনের বিরুদ্ধে খেলা হবে, টাকা চুরির বিরুদ্ধে খেলা হবে, ভোট চুরির বিরুদ্ধে খেলা হবে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে খেলা হবে, দু:শাসনের বিরুদ্ধে খেলা হবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এই স্লোগান কারও কারও পছন্দ নয়, কিন্তু জনগণ এই স্লোগান পছন্দ করেছে, গ্রহণ করেছে। এই স্লোগান আমি বারবার দিয়েই যাবো। চট্টগ্রাম, দিনাজপুর, জামালপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, টাঙ্গাইল ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গিয়েছি, দেখেছি জনগণ এই স্লোগান দিয়েছে।’

জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক এএইচএম খায়রুল আনম সেলিমের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাইদ আল মাহমুদ স্বপন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলি, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।


আরও খবর