বুধবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২২ | ১২ মাঘ, ১৪২৮ | ২২ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

মূলপাতা জাতীয়

যত সিট তত যাত্রী নিয়ে বিদ্যমান ভাড়াতেই চলবে বাস


নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশের সময় :১৩ জানুয়ারি, ২০২২ ৭:৩১ : অপরাহ্ণ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তার রোধে গণপরিবহনে মোট আসনের অর্ধেক ফাঁকা রেখে বাস চলাচলের যে নির্দেশনা দিয়েছিল সরকার, বাসের ক্ষেত্রে সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়েছে।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গণপরিবহনে যত আসন রয়েছে তত যাত্রী পরিবহন করা হবে।

আজ বৃহস্পতিবার বিধিনিষেধ শুরু দিনই (বৃহস্পতিবার) এই সিদ্ধান্ত বদলের খবর এলো।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ রাজনীতি সংবাদকে বলেন, আজ বিকেলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে গাড়িতে যত সিট তত যাত্রী নিয়ে চলাচলের সিদ্ধান্ত আমাদের মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। আমরা সকল পরিবহন মালিকদের ই বার্তা পৌঁছে দিয়েছি। এক্ষেত্রে যারা সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মানবে না তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সড়কে পুলিশ প্রশাসনকে আমরা অনুরোধ করেছি তারা যাতে বিষয়টি দেখেন। এজন্য আমাদের হেলপার ও চালকদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

এর আগে গতকাল বুধবার রাজধানীর বনানীতে পরিবহন মালিক, শ্রমিক, পুলিশ ও ভোক্তা প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার জানিয়েছিলেন, ভাড়া না বাড়িয়ে আগামী শনিবার থেকে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বাস চলবে।

আরও পড়ুন: করোনা রোধে ১১ দফা বিধিনিষেধ জারি, বাস-ট্রেনে অর্ধেক যাত্রী, সমাবেশ নিষিদ্ধ

দেশে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় গত ১০ জানুয়ারি বাস, ট্রেন ও লঞ্চে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রী পরিবহনসহ ১১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

১১ দফা বিধিনিষেধের ছয় নম্বর দফায় বলা হয়েছে, ট্রেন, বাস এবং লঞ্চে অর্ধেক যাত্রী নিতে হবে। সব যানের চালক ও সহকারীদের আবশ্যিকভাবে কোভিড-১৯ টিকা সনদধারী হতে হবে।

প্রজ্ঞাপন জারির পর পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা এর প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন।

বাস ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহকারী সাধারণ সম্পাদক রাকেশ ঘোষ গণমাধ্যমকে বলেন, ৯৫ ভাগ চালক শ্রমিক এখনও টিকা পাননি বা নেননি। তাহলে বাস চালাবে কে? এ সিদ্ধান্তের ফলে গণপরিবহন বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

আরও পড়ুন: যেসব উপসর্গে বুঝবেন আপনি ওমিক্রনে আক্রান্ত

সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, গণপরিবহন চলাচল স্বাভাবিক রাখতে চালক শ্রমিকদের কীভাবে দ্রুততম সময়ে টিকা দেওয়া যায়, তাতে জোর দেয়া হয়েছে। সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে এ নিয়ে আলাপ চলছে। চালক শ্রমিকরা যেন পরিচয়পত্র অথবা লাইসেন্স দেখিয়ে টিকা নিতে পারেন সেই প্রস্তাব করা হয়েছে।

গণপরিবহনে অর্ধেক আসন খালি রেখে চালানোর প্রতিবাদ জানিয়ে বুধবারের বৈঠকে মালিকরা বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত সব খোলা রেখে অর্ধেক আসন খালি রেখে বাস চললে তীব্র পরিবহন সংকট হবে এ যুক্তি তুলে ধরে তারা সরকারি নির্দেশনা পুনর্বিবেচনার দাবি জানায়।

অন্যথায় চালক শ্রমিকরা বাস চালানো বন্ধ করে দিতে পারেন বলেও সরকারকে হুঁশিয়ার করেছিলেন মালিকরা।

আরও পড়ুন: করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ওমিক্রন’ কতটা বিপজ্জনক


Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আরও খবর