শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১ | ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ | ২১ রবিউস সানি, ১৪৪৩

মূলপাতা আঞ্চলিক রাজনীতি

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনে আপত্তি: মেয়র আব্বাসকে আওয়ামী লীগ থেকে অব্যাহতি


প্রতিনিধি, রাজশাহী প্রকাশের সময় :২৪ নভেম্বর, ২০২১ ১০:০১ : অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে আপত্তি ও নেতিবাচক মন্তব্য করায় রাজশাহীর কাটাখালি পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্বাস আলীকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়েছে।

আজ বুধবার পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের জরুরি বৈঠকে তাকে পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়কের পদ থেকে অব্যাহতির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

একই সঙ্গে কেন তাকে দলীয় সদস্য পদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, তা জানতে চেয়ে তিন দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়ারও সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন পবা উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী।

পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাজদার রহমান সরকার বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ইয়াসিন আলীর সভাপতিত্বে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়। সেখানে মেয়রকে পদ থেকে অব্যাহতির পাশাপাশি কেন আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, তা জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়ারও সিদ্ধান্ত হয়েছে। জবাব হাতে পাওয়ার পর তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য দলের কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ পাঠানো হবে।

সম্প্রতি মেয়র আব্বাস একটি ঘরোয়া বৈঠকে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কের পৌরসভার অংশের উন্নয়নকাজ নিয়ে কথা বলার সময় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি ও বিতর্কিত মন্তব্য করেন।

এ সময় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণ প্রতিহতের ঘোষণা দেন তিনি। এ নিয়ে তার ফাঁস হওয়া একটি অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পাড়ে।

অডিও ক্লিপে তিনি একজনকে বলতে শোনা যায়, ‘সিটি গেট আমার অংশে। একটু চেঞ্জ করতে হচ্ছে, যে মুর‌্যালটা দিয়েছে বঙ্গবন্ধুর সেটা ইসলামি শরীয়ত মতে সঠিক নয়। এজন্য আমি ওটা থুব (রাখবো) না, সব করবো তবে শেষ মাথাতে যেটা ওটা (মুর‌্যাল)। আমি দেখতে পাচ্ছি আমাকে যেভাবে বুঝাইছে আমি দেখতে পাচ্ছি যে মুর‌্যালটা ঠিক হবে না। দিলে আমার পাপ হবে, তো কেন দিব? দিব না। আমিতো কানা না, যেভাবে বুঝাইছে তাতে আমার মনে হয়েছে মুর‌্যালটা হলে আমার ভুল করা হবে। এ খবরটা যদি যায় তাহলে আমার রাজনীতির বারোটা বাজবে, এই মুর‌্যাল দিত চেয়ে দিছে না। তাহলে বঙ্গবন্ধুকে খুশি করতে গিয়ে আল্লাহকে নারাজ করবো নাকি। এজন্য কিছু করার নাই। মানুষকে সন্তুষ্ট করতে গিয়ে আল্লাহকে অসন্তুষ্ট করা যাবে না।’

এ ঘটনায় মেয়র আব্বাসের বিরুদ্ধে নগরীতে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কাটাখালি পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী নৌকা প্রতীক নিয়ে দুইবার মেয়র নির্বাচিত হন। তিনি পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক এবং জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদেও ছিলেন।


Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আরও খবর