বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই, ২০২২ | ২৩ আষাঢ়, ১৪২৯ | ৭ জিলহজ, ১৪৪৩

মূলপাতা দেশজুড়ে

ঘাবড়ানোর কিছু নেই, সরকার পাশে আছে, সিলেটে প্রধানমন্ত্রী


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :২১ জুন, ২০২২ ১:০৩ : অপরাহ্ণ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বন্যায় ঘাবড়ানোর কিছু নেই। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে এ দেশের মানুষ বসবাস করে। সরকার আপনাদের পাশে আছে। সব সময় আপনাদের পাশে থাকবে।’

আজ মঙ্গলবার সকালে নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ ও সিলেটে বন্যাকবলিত এলাকা হেলিকপ্টারে পরিদর্শন শেষে সিলেট সার্কিট হাউসে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এবার সিলেটে পরপর তিনবার বন্যা। এটা খুব অস্বাভাবিক। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব রকমের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে সহায়তা দেয়া হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বন্যার প্রস্তুতি আমাদের ছিলো। আমি আগেই নির্দেশ দিয়েছি খাদ্যগুদামের ক্ষতি যেনো না হয়। পাশাপাশি খাদ্য বের করার রাস্তা যেনো থাকে।’

হাওর অঞ্চলে এলিভেটেড রাস্তা করার পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সিলেট অঞ্চলে মাটি উঁচু করে আর কোনো রাস্তা করা হবে না। এলিভেটেড রাস্তা হবে। এলিভেটেড রাস্তা হলে সেটা সহজে নষ্ট হয় না, বন্যার মত দুর্যোগে যাতায়াতেরও সুবিধা হবে। এলিভেটেড রাস্তা হলে হাওরের কোনো ক্ষতি হবে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বন্যার কারণে অনেক জায়গা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এ কারণে আমরা সেনা, নৌ, বিমান বাহিনী মোতায়েনের নির্দেশ দিয়েছি। উদ্ধার কাজ চালাতে সবাই কাজ করেছে। বিশেষ করে দলীয় নেতা-কর্মীরাও নিরলস চেষ্টা করেছেন। বিদ্যুৎ কেন্দ্র উঁচুতে করলে লাভ হবে না। আমাদের যুবলীগের কর্মী বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে। সেজন্য বন্যার্ত এলাকায় বিদ্যুৎ বন্ধ করে দেয়া হয়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বন্যার পানি যখন কমতে থাকবে, সঙ্গে সঙ্গে কৃষক যাতে চাষবাস করতে পারে সে ব্যবস্থা আমরা নেব। যদি বন্যা একটু দীর্ঘস্থায়ী হয়, তাহলে ধানের যে চারা তৈরি করা, তার জন্য বীজ সংরক্ষণ করে রাখা আছে, ফার্টিলাইজার রাখা আছে, সঙ্গে সঙ্গে আমরা দেব এবং কৃষক যেন আবার ফসল ফলাতে পারে, সে ব্যবস্থাটাও আমরা নেব।’

মতবিনিময় সভায় সিলেট ও সুনামগঞ্জের স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ, বিজিবি, সিলেট মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বন্যার সার্বিক চিত্র তুলে ধরেন। সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র এ সময় বক্তব্য দেন। স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতারাও বন্যা পরিস্থিতি তুলে ধরেন। সোয়া দুই ঘণ্টা ধরে চলা মতবিনিময় সভায় প্রধানমন্ত্রী সকলের বক্তব্য শোনেন।

প্রধানমন্ত্রী পরে সিলেট, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসকের হাতে তার পক্ষ থেকে সিলেট ও সুনামগঞ্জবাসীর জন্য ত্রাণ সহায়তা তুলে দেন।


Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আরও খবর