মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২৪ মাঘ, ১৪২৯ | ১৫ রজব, ১৪৪৪

মূলপাতা চট্ট-মেট্টো

আহমদ শফির মৃত্যু স্বাভাবিক, ৩ মাস পর হত্যা মামলা রাজনৈতিক চক্রান্ত: বাবুনগরী


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :২৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ৩:৫৪ : অপরাহ্ণ

হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির শাহ আহমদ শফির স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে সংগঠনটির বর্তমান আমির জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন ‘মৃত্যুর তিন মাস পর রাজনৈতিক ফায়দা লুটের জন্য মিথ্যা হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এটি রাজনৈতিক চক্রান্ত।’

আজ বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রামের হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসা মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসা ও হেফাজতে ইসলামের যৌথ ব্যবস্থাপনায় এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হেফাজতে ইসলামের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ডা. নুরুল আফছার আজাহারী।

আহমদ শফির চিকিৎসায় বাধা দেওয়ার অভিযোগের বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে বাবুনগরী বলেন, ‘আল্লামা শফি অসুস্থ হওয়ার পর তাকে যখন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তখন মাদ্রাসার সিনিয়র শুরা সদস্য সবাই উপস্থিত ছিলেন। তাদের সামনে তাকে চিকিৎসা জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। আমরা সবাই হুজুর (আল্লামা শফি) আশেক, প্রেমিক। ওনার উপর নির্যাতন করার প্রশ্নই আসে না। যে অভিযোগ করছে তা বানোয়াট, মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, এ মামলা মাদ্রাসা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্ঠ করা এবং হেফাজতে ইসলামের নেতাদের হয়রানি করার হীন ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছু নয়। এ কুচক্রী মহল নিজেদের কর্মফলের পরিণতিস্বরূপ জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়ে ইসলামী নীতি ও আদর্শ থেকে বিচ্যুত হয়ে গেছে। এখন তারা আল্লামা শফির মৃত্যু নিয়ে নতুন ফায়দা লুটার উদ্দেশ্যে চক্রান্তে নেমেছে।

জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, এর আগে তারা আল্লামা শফির লাশ নিয়েও নোংরা রাজনীতি করে ফায়দা হাসিলে ব্যর্থ হয়েছিল। আল্লামা শফির জীবদ্দশাতেও তাকে জিম্মি করে কায়েমি স্বার্থ হাসিল করতে দেখা গিয়েছিল। তারাই ওনাকে জিম্মি করে একের পর এক দুর্নীতি ও অনাচার চালিয়ে ওনার আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তাকে বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ করেছিল।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন হেফাজতের সিনিয়র নায়েবে আমির মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, দারুল উলুম হাটহাজারী মাদ্রাসার শূরা সদস্য মোহাম্মদ ইয়াহইয়া, নোমান ফয়জী, হেফাজত নেতা তাজুল ইসলাম, মোহাম্মদ শোয়াইব, মুফতী কেফায়েতুল্লাহ ও মুফতী জসিম উদ্দীন।

হেফাজতের সাবেক আমির আহমদ শফিকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে-এমন অভিযোগ এনে তার শ্যালক মো. মঈনুদ্দীন গত ১৭ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের একটি আদালতে সংগঠনটির যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকসহ ৩৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামিদের বেশিরভাগই বর্তমান আমির জুনায়েদ বাবুনগরীর ঘনিষ্ঠ। তাদের অনেকে হেফাজতের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে রয়েছেন।


আরও খবর