শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪ | ৭ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৪ জিলহজ, ১৪৪৫

মূলপাতা আওয়ামী লীগ

কালো টাকা সাদা করার সুযোগ-মাছ ধরতে আধার দেওয়ার মতো: প্রধানমন্ত্রী


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :৭ জুন, ২০২৪ ৭:১৫ : অপরাহ্ণ
আজ রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
Rajnitisangbad Facebook Page

আগামী অর্থবছরের বাজেটে প্রস্তাবিত কালো টাকা সাদা করার সুযোগকে ‘মাছ ধরতে আধার দেওয়ার মতো একটা ব্যবস্থা’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘টাকা যেন কেউ গুঁজে না রাখে, সেজন্য সামান্য কিছু দিয়ে টাকাটা পথে আসুক, জায়গামতো আসার সুযোগ করা হয়েছে।’

আজ শুক্রবার ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘একটা প্রশ্ন এসেছে, কালো টাকা নিয়ে। অনেকে বলে, তাহলে আর কেউ ট্যাক্স দেবে না। ঘটনা কিন্তু তা না। এটা শুধু কালো টাকা না, জিনিসের দাম বেড়েছে। এখন এক কাঠা জমি যার সেই কোটিপতি। সরকারি যে হিসাব, সে হিসাবে কেউ বেচে না, বেশি দামে বেচে কিছু টাকা উদ্বৃত্ত হয়। এই টাকাটা গুঁজে রাখে। তাই গুঁজে যাতে না রাখে, সেজন্য সামান্য কিছু দিয়ে টাকাটা পথে আসুক, জায়গামতো আসুক। তারপর তো ট্যাক্স দিতেই হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি ঠাট্টা করে বলি মাছ ধরতে গেলে তো আদার দিতে হয়। আদার ছাড়া তো মাছ আসবে না। সেরকম একটা ব্যবস্থা এটা। এরকম আগেও হয়েছে, কেয়ারটেকার আমলেই শুরু করেছিল, প্রত্যেক সরকারই করে। আমরা এবারও সেই সুযোগটা দিচ্ছিলাম, যে অল্প ট্যাক্স দিয়ে টাকাটা আগে ব্যাংকে নিয়ে আসো। অর্থাৎ, টাকাটা উদ্ধার হোক। আর এই ব্যবস্থাটা নিয়ে নানা কথা।’

অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে বাজেট দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি জানি কারও ভালো লাগে, কারও ভালো লাগে না। বাজেট ঘাটতি নিয়েও অনেকে কথা বলে। আমি সরকারে আসার পর, এটা ২১তম বাজেট দিলাম। সবসময় আমরা ৫ শতাংশ বাজেট ঘাটতি রাখি। এবারও ৪ দশমিক ৬ শতাংশ রাখা হয়েছে। পৃথিবীর বহু দেশে এমনকি উন্নত দেশেও আছে। আমেরিকায় খবর নেন বাজেট ঘাটতি কত। উন্নত দেশেও এর চেয়ে বেশি বাজেট ঘাটতি থাকে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্ব পরিস্থিতি মাথায় রেখেই আমাদের পরিকল্পনা করে চলতে হবে। কিছু ভালো লাগে না যেই গ্রুপ আছে তাদের ভালো না লাগাই থাক, ওগুলোতে কান দেওয়ার দরকার নাই। এটা নতুন না। যখন অস্বাভাবিক সরকার আসে, তারা খুব খুশি হয়। মার্শাল ল’ এর সময় খুশি ছিল, তত্ত্বাবধায়ক সরকারে খুশি ছিল। তাতে তাদের নাকি গুরুত্ব থাকে। আর জনগণের ভোটে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে তাদের নাকি মূল্যায়ন হয় না। মূল্যায়ন করবো কীভাবে, দাঁড়িপাল্লায় দাঁড় করিয়ে মাপবো নাকি? কেয়ারটেকারের সময় দেখেছি, তাদের চরিত্র, কীভাবে তেল মারে অগণতান্ত্রিক সরকারকে। আমাদের ওই তেল মারা গোষ্ঠীর দরকার নেই।’

আরও পড়ুন: বিনা প্রশ্নে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর