বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ২০ জিলকদ, ১৪৪৫

মূলপাতা জাতীয়

স্বাধীনতা সূচকে শ্রীলঙ্কা, ভারত, পাকিস্তানেরও পেছনে বাংলাদেশ


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :১৬ এপ্রিল, ২০২৪ ১১:২৮ : অপরাহ্ণ
দ্য এশিয়া ফাউন্ডেশন ও ইউএসএআইডি ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে প্রতিবেদনটির নানা দিক তুলে ধরে। ছবি: সংগৃহীত
Rajnitisangbad Facebook Page

বৈশ্বিক স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় পাঁচ প্রতিবেশী দেশের তুলনায় পিছিয়ে আছে। যে দেশগুলোর তুলনায় পিছিয়ে আছে, তা হলো–ভুটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ভারত, পাকিস্তান। কেবল এগিয়ে আছে দূর প্রতিবেশী আফগানিস্তানের তুলনায়।

ওয়াশিংটনভিত্তিক থিংক ট্যাংক ‘আটলান্টিক কাউন্সিল’ প্রকাশিত ‘গ্লোবাল ফ্রিডম অ্যান্ড প্রোসপারিটি রিপোর্টে’ এসব তথ্য উঠে এসেছে।

আজ মঙ্গলবার দ্য এশিয়া ফাউন্ডেশন ও ইউএসএআইডি ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে প্রতিবেদনটির নানা দিক তুলে ধরে।

প্রতিবেদনে দুটি পৃথক সূচক রয়েছে-স্বাধীনতা সূচক ও সমৃদ্ধি সূচক। বিশ্বের ১৬৪টি দেশের স্বাধীনতা ও সমৃদ্ধির ধরন অনুযায়ী ক্রম বা অবস্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান টানা ২২ বছর ধরে হ্রাস পাচ্ছে। দেশের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও আইনি অবস্থান এই সূচকের অন্তভূক্ত।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভূটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ভারত, এমনকি পাকিস্তানও। দেশগুলোর অবস্থান যথাক্রমে ৬১, ৮৬, ৯৭, ১০৪ ও ১১৩তম।

এর মধ্যে ভূটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও ভারত ‘অধিকাংশক্ষেত্রে স্বাধীন’ এবং পাকিস্তান ‘অধিকাংশক্ষেত্রে স্বাধীনতাবঞ্চিত’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

সার্কভুক্ত দক্ষিণ এশিয়ার আরেক দেশ আফগানিস্তান রয়েছে তালিকার সর্বশেষ ১৬৪তম অবস্থানে।

স্বাধীনতা সূচকে শীর্ষ পাঁচটি দেশ হচ্ছে ডেনমার্ক, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড ও লুক্সেমবার্গ।

সমৃদ্ধির সূচকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে শ্রীলঙ্কা, যে দেশটি গুরুতর অর্থনৈতিক সংকট কাটিয়ে সম্প্রতি ঘুড়ে দাঁড়িয়েছে। সূচকে শ্রীলঙ্কার অবস্থান ৭২তম এবং দেশটি ‘অধিকাংশ ক্ষেত্রে সমৃদ্ধ’।

এই সূচকে বাংলাদেশের পেছনে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভূটান (১১১), নেপাল (১৩১), ভারত (১৪৬), পাকিস্তান (১৫০) ও আফগানিস্তান (১৬৩)।

সমৃদ্ধির সূচকে শীর্ষ পাঁচটি দেশ হচ্ছে নরওয়ে, আইসল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সুইডেন ও নিউজিল্যান্ড।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আটলান্টিক কাউন্সিলের ফ্রিডম অ্যান্ড প্রসপারিটি সেন্টারের পরিচালক জোসেফ লেমোইন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেন, ‘প্রায় সব দেশে দুর্নীতির বিপক্ষে এবং অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক অধিকার সুরক্ষিত করার লড়াই চলছে। এ ক্ষেত্রে সমস্যা এড়িয়ে যাওয়া নয়, সমস্যা সক্রিয়ভাবে স্বীকার করা এবং তা মোকাবিলা করাই মূল বিষয়।’

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর