বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৯ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ১১ শাবান, ১৪৪৫

মূলপাতা চট্ট-মেট্টো

চট্টগ্রাম আদালতে বিচারককে জুতা ছুড়ে মারলেন আসামি


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম প্রকাশের সময় :২৮ নভেম্বর, ২০২৩ ৫:২৭ : অপরাহ্ণ
Rajnitisangbad Facebook Page

নয় মাস কারাগারে থেকেও জামিন না পেয়ে চট্টগ্রামে সাইবার ট্রাইবুন্যাল আদালতের বিচারক মোহাম্মদ জহিরুল কবিরকে লক্ষ্য করে পর পর দুটি জুতা ছুঁড়ে মেরেছেন এক আসামি।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার মনির খান মাইকেল নামের এক আসামি তার দিকে জুতা ছুড়ে মারেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় নগরীর কোতোয়ালী থানায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বিচারককে জুতা নিক্ষেপকারী আসামি মনির খান মাইকেল (৩২) ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসির নগর থানার গোকর্ন গ্রামের গোলাপ খাঁ’র ছেলে।

জানা গেছে, বেলা ১২টার দিকে বিচারক এজলাসে এসে আসন গ্রহণ করেন। এ সময় গারদে (কাঠগড়া) থাকা আসামি মনির খান মাইকেল বিচারককে লক্ষ্য করে পরপর দুটি জুতা ছুঁড়ে মারেন। জুতা দুটি বিচারকের মাথার ওপর দিয়ে গিয়ে পেছনে পড়ে। ঘটনার আকস্মিকতায় হতভম্ব হয়ে যান বিচারক।ঘটনার পরপরই কর্তব্যরত পুলিশ আসামিকে জাপটে ধরে নিজেদের হেফাজতে নেয়। এরপর বিচারক এজলাস থেকে নেমে যান।

জানতে চাইলে সাইবার ট্রাইবুন্যাল আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘বেলা ১২টার দিকে বিচারক এজলাসে এসে আসন গ্রহণ করেন। আমরা তখনও দাঁড়ানো অবস্থায় ছিলাম। এ সময় কাঠগড়ায় থাকা আসামি জামিন না দেওয়ায় বিচারককে উদ্দেশ করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। হঠাৎ দেখা যায়, কাঠগড়ায় থাকা আসামি মনির খান মাইকেল বিচারককে লক্ষ্য করে পরপর দুটি জুতা ছুঁড়ে মারেন। জুতা দুটি বিচারকের মাথার ওপর দিয়ে গিয়ে পেছনে পড়ে।’

এ ঘটনার পর আসামিপক্ষের আইনজীবী আদালতে আবেদন করে জানিয়েছেন, ওই আসামির পক্ষে তিনি আর আইনি লড়াই করবেন না।

আদালত থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যের অভিযোগে ২০২১ সালের ২২ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর থানা পুলিশের এসআই তপু সাহা বাদী হয়ে মনির খান মাইকেল বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করেন। সেই মামলায় গত ২৩ জানুয়ারি গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে যান আসামি।

গত ২০ জুন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ। মামলাটি এখন বিচারিক প্রক্রিয়ায় আছে।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর