রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪ | ২ আষাঢ়, ১৪৩১ | ৯ জিলহজ, ১৪৪৫

মূলপাতা আঞ্চলিক রাজনীতি

খুলনার জনসভা থেকে নৌকায় ভোট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি নিলেন শেখ হাসিনা


রাজনীতি সংবাদ প্রতিনিধি, খুলনা প্রকাশের সময় :১৩ নভেম্বর, ২০২৩ ৭:৩৩ : অপরাহ্ণ
আজ বিকেলে খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে জনসভায় ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত
Rajnitisangbad Facebook Page

খুলনার জনসভা থেকে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি নিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

উপস্থিত জনতার উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নৌকা স্বাধীনতা ও উন্নয়ন দিয়েছে। নৌকায় ভোট দিয়েছেন বলে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। এই নৌকাই দেবে ২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশ। আমার স্মার্ট জনগোষ্ঠী হবে। স্মার্ট সরকার, স্মার্ট অর্থনীতি, স্মার্ট সমাজ হবে। কাজেই নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আরেকবার সেবা করার সুযোগ দেবেন।

আজ সোমবার বিকেলে খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে তখন জনগণের উন্নয়ন হয়। দুর্ভাগ্যের বিষয় বিএনপি মানে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। বিএনপি-জামায়াতের কাজই হচ্ছে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারা। মানুষ খুন তাদের একমাত্র গুণ। বিএনপি-জামায়াতের আর কোনো গুণ নেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা দেখেছেন এই ২৮ অক্টোবর কীভাবে পুলিশকে মাটিতে ফেলে পিটিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। বেহুঁশ হয়ে গেছে তাও ছাড়েনি। তারপর কুপিয়েছে। ৪৫ জন পুলিশ আহত হয়েছে। সাংবাদিকদেরও ছাড়েনি। সাংবাদিকদের তারা পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। রাজারবাগ পুলিশ স্টেশনে ঢুকে হাসপাতালে আক্রমণ করেছে। কয়েকটা অ্যাম্বুলেন্স ভেঙেছে, পুড়িয়ে দিয়েছে। কয়েকটা অ্যাম্বুলেন্স ভেঙেছে, পুড়িয়ে দিয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সে করে রোগী যাচ্ছে সেই অ্যাম্বুলেন্সে আক্রমণ করেছে। এদের মধ্যে এতটুকু মনুষ্যত্ববোধ আছে বলে আমি মনে করি না।

শেখ হাসিনা বলেন, আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ থাকবে কেউ যদি গাড়িতে আগুন দেয় ও মানুষকে আগুনো পোড়াতে চেষ্টা করে তাদের ওই হাত ওই আগুনে পুড়িয়ে দেবেন। উপযুক্ত শিক্ষা দিয়ে দেবেন। যাতে আর কেউ সাহস না পায় এদেশের মানুষের জন্য এভাবে ক্ষতি করতে। কারণ আমি দেখেছি সেই পোড়া মানুষগুলোর দুরবস্থা। চোখে পানি রাখা যায় না। প্রত্যেক এলাকায় আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা আপনারা মানুষের নিরাপত্তা দেবেন। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যদের সাথে তাদেরকেও আপনারা নিরাপত্তা দেবেন। সেটাই আমি আহ্বান জানাচ্ছি।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, আমার একটাই লক্ষ্য এ দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করা। ২০০৮ সাল ২০১৪, ২০১৮ সালে ক্ষমতায় এসেছি। ধারাবাহিক গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত রয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, এ দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে আমার বাবা জীবন দিয়েছিলেন। আমি শুধু এ দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করতে চাই। ক্ষুধা, দারিদ্র থেকে মুক্তি দিয়ে উন্নত জীবন দিতে চাই। আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। দেশের মানুষ যদি ভালো থাকে সেটাই আমার পাওয়া।

সরকারপ্রধান বলেন, আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল। বাংলাদেশের মানুষ মাথা উচু করে চলতে পারে। আজকের বাংলাদেশ আর অবহেলার বাংলাদেশ না। আজকের বাংলাদেশ এগিয়ে যাবার বাংলাদেশ। অপ্রতিরোধ্য গতিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আগামীতে নির্বাচন হবে। এ সময় সবাইকে একটা বিষয় নজর রাখতে হবে। বিএনপি জামায়াত ২০০৮ সালে মাত্র ৩০টা সিট পেয়েছিল। তাদের নেতা নেই। মুণ্ডহীন একটা দল। একটা পলাতক, আরেকটা কারাগারের আসামি। সেই দল এই দেশে নির্বাচন হতে দিতে চায় না। একটা অস্বাভাবিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর