শুক্রবার, ২৭ মে, ২০২২ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ | ২৫ শাওয়াল, ১৪৪৩

মূলপাতা চট্ট-মেট্টো

দোকানে সুড়ঙ্গ তৈরি করে লুকিয়ে রাখা হয়েছিল ১০৫০ লিটার সয়াবিন তেল


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :৮ মে, ২০২২ ৬:৪৪ : অপরাহ্ণ
চট্টগ্রাম নগরীর ২ নম্বর গেট কর্ণফুলী কমপ্লেক্সের একটি দোকানে অভিযান চালিয়ে সুড়ঙ্গ থেকে তেল উদ্ধার করা হয়। ছবি: সংগৃহীত

সয়াবিন তেল নিয়ে সাধারণ ভোক্তাদের ঘুম হারাম হলেও বাড়তি লাভের আশায়  চট্টগ্রাম নগরীর একটি দোকানের মধ্যে সুড়ঙ্গ তৈরি করে লুকিয়ে রাখা হয়েছিল ১ হাজার ৫০ লিটার তেল।

আজ রোববার বিকেলে নগরীর ২ নম্বর গেটের কর্ণফুলী কমপ্লেক্সের খাজা স্টোরে অভিযান চালিয়ে এসব তেল জব্দ করেছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের একটি টিম। এভাবে তেল মজুত করার দৃশ্য দেখতে পান কর্মকর্তারা।

এ অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আনিছুর রহমান ও নাসরিন আক্তার।

উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে নগরের কর্ণফুলী মার্কেটের খাজা স্টোরে অভিযান চালিয়ে দোকানের ভেতরে সুড়ঙ্গ তৈরি করে গোপনে মজুত করে রাখা ১ হাজার ৫০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়েছে। মূলত অবৈধভাবে মজুত করে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে বাড়তি লাভের আশায় এমনটা করা হয়েছে।

তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতিষ্ঠানটির সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি আমাদের কাছে স্বীকারও করেছেন। এ অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটিকে সতর্কও করা হয়েছে। জব্দ করা তেল আমরা তাৎক্ষণিকভাবে আশপাশের দোকানে বিক্রির জন্য বিতরণ করে দিয়েছি।

ফটিকছড়িতে ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে ২৩২৮ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার

ফটিকছড়িতে এক ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে ২ হাজার ৩২৮ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানাধীন বাগানবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণ গজারিয়া গ্রামে আক্তার হোসেন নামে এক ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে কার্টনভর্তি এসব তেল উদ্ধার করা হয়।

 ফটিকছড়িতে ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে ২৩২৮ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার

ফটিকছড়িতে ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে ২৩২৮ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম আলমগীর এ অভিযান পরিচালনা করেন।

তিনি গণমাধ্যমকে জানান, বিভিন্ন মাধ্যমে খবর পাই যে, এক ব্যবসায়ী বেশকিছু সয়াবিন তেল অবৈধভাবে মজুত করে রেখেছে। পরে গত রাতে অভিযান চালিয়ে মজুতকৃত ২ হাজার ৩২৮ লিটার সয়াবিন তেল পাওয়া যায়। অবৈধভাবে পণ্য মজুতের অভিযোগে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইন-১৯৫৬ এর বিভিন্ন ধারায় ৪০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। সেই সঙ্গে সংগ্রহে রাখা তেল আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে খোলাবাজারে বিক্রির নির্দেশনা দেওয়া হয়।


Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আরও খবর