fbpx





বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০২২ | ২১ আশ্বিন, ১৪২৯ | ৯ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা চট্ট-মেট্টো

ভোটে সহিংসতা হলে কাউকে ছাড় দিব না, মোগলটুলির ঘটনার দৃষ্টান্ত দিলেন সিএমপি কমিশনার


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :১৭ জানুয়ারি, ২০২১ ৮:২৫ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সহিংসতা করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে কড়া বার্তা দিয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্টাপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। তিনি নগরীর একটি এলাকায় নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনার দৃষ্টান্ত দিয়ে সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘গত ১২ জানুয়ারি মোগলটুলির ঘটনায় আপনারা দেখেছেন, আমরা একটুও সময় নিইনি সিদ্ধান্ত নিতে। কাউকে ছাড় দেওয়ার কোনো সুযোগ নাই। আমরা শক্ত অবস্থানে আছি।’

আজ (১৭ জানুয়ারি) রোববার বিকেলে দামপাড়ায় চট্টগ্রাম মেট্টাপলিটন পুলিশ (সিএমপি) সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ-ওয়েস্টইন্ডিজ ক্রিকেট সিরিজের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা সংক্রান্ত প্রস্তুতি নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি নগরীর ২৮ নম্বর পাঠানটুলি ওয়ার্ডের মগপুকুর পাড় এলাকায় আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলামের বাহাদুরের গণসংযোগে গুলি বর্ষণের ঘটনায় বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদেরসহ ১১ জনকে আটক করে পুলিশ। পরে তাদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

নির্বাচনে বহিরাগতদের এনে নগরীতে সহিংসতা ঘটানোর আশঙ্কার বিষয়ে সালেহ মোহাম্মদ তানভীর বলেন, আমরা দেখছি কারা আসতে পারে। সম্ভাব্য জায়গাগুলোতে আমরা চেকপোস্ট বসিয়েছি এবং হোটেলগুলোতেও ড্রাইভ দিচ্ছি। নগরীতে পুলিশ টহল, চেকপোস্ট বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি যেসব বিষয় নির্বাচনকে সহিংস করতে পারে সেগুলো প্রতিরোধ করতে আমরা অভিযান পরিচালনা করছি। বিভিন্ন স্থানে তাৎক্ষনিক চেকপোস্ট হচ্ছে। যেহেতু মোটর সাইকেল, সিএনজি অটোরিকশা, মাইক্রোবাস এ ধরনের বাহনগুলো সহিংস ঘটনায় সচরাচর ব্যবহার করা হয় সেজন্য এগুলোকে নজরদারি করা হচ্ছে।

অস্ত্রধারীদের বিষেয় সিএমপি কমিশনার বলেন, ‘মোগলটুলির ঘটনায় যে অস্ত্র দিয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছিল তা এখনও উদ্ধার করা যায়নি। আমরা কোনো পর্যায়ে অস্ত্রের ব্যবহার আশা করি না। এটা ঠেকাতে আমরা চেকপোস্ট বাড়িয়েছি। আমাদের চেষ্টা থাকবে কোনোভাবেই যেন অস্ত্রের ব্যবহারের মাধ্যমে কোনো ধরনের সংঘাত ছড়িয়ে না পড়ে। ২ হাজার ৪৭৭টি বৈধ অস্ত্রের তথ্য আমাদের কাছে আছে। নির্বাচন কমিশন এ ব্যাপারে নির্দেশনা দেবে যে কবে তারা অস্ত্রগুলো জমা নেবেন।’

সালেহ মোহাম্মদ তানভীর বলেন, আমরা কারও নির্বাচনী প্রচারণাকে নিয়ন্ত্রণ করছি না। এটা সবার জন্য উন্মুক্ত আছে। আমরা সবাইকে বলেছি আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপানারা আসেন, আমরা মামলা নিব। আমরা কঠোর অ্যাকশন নিব, এ বিষয়ে কাউকে ছাড় আমরা দিব না।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন) ডিআইজি আমেনা বেগম, অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) এসএম মোস্তাক আহমেদ, অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ ও বিভিন্ন জোনের উপ-কমিশনার, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ও সহকারী কমিশনাররা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর