শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪ | ৬ বৈশাখ, ১৪৩১ | ৯ শাওয়াল, ১৪৪৫

মূলপাতা রাজধানী

রাজধানীতে খৎনা করাতে গিয়ে আরও এক শিশুর মৃত্যু


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ১২:০২ : অপরাহ্ণ
সন্তানের মরদেহ জড়িয়ে মায়ের আহাজারি। ছবি: সংগৃহীত
Rajnitisangbad Facebook Page

রাজধানীতে খৎনা করাতে গিয়ে আরেক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে মালিবাগের জে এস ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড মেডিকেল চেকআপ সেন্টারে ভুল চিকিৎসায় এ ঘটনা ঘটে।

চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই শিক্ষার্থীর নাম আহনাফ তাহমিন আয়হাম (১০)।

স্বজনদের অভিযোগ, লোকাল অ্যানেস্থেসিয়া দেওয়ার কথা থাকলেও তারা ফুল অ্যানেস্থেসিয়া দিয়েছে। যে কারণে আহনাফের আর জ্ঞান ফেরেনি।

এ ঘটনায় শিশুটির বাবা ফখরুল আলম বাদী হয়ে রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় ৮ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। এরপর পুলিশ মেডিকেল সেন্টারটিতে অভিযান চালিয়ে দুই চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করে। মেডিকেল চেকআপ সেন্টারটি বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।

হাতিরঝিল থানার ওসি মো. আওলাদ হোসেন বলেন, সুন্নতে খৎনা করাতে গিয়ে শিশু আয়হাম মৃত্যুর ঘটনায় মামলা করেছেন শিশুটির বাবা। ডা. এস এম মুক্তাদিরসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে আরও ৫ জন অজ্ঞাতনামার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তিনি। এ ঘটনায় মেডিকেল চেকআপ সেন্টারটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আর দুজন চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

শিশুটির পরিবারের অভিযোগ, খতনা করাতে মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে আয়হামকে মালিবাগের ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করানো হয়। অ্যানেসথেসিয়া দেওয়ার পর আর জ্ঞান ফেরেনি তার। লোকাল অ্যানেসথেসিয়া দেওয়ার কথা থাকলেও ফুল অ্যানেসথেসিয়া দেওয়া হয় আয়হামকে। ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। ঘটনার পর যে চিকিৎসকের অধীনে ভর্তি করা হয়েছিল, তিনি পালিয়ে গেছেন।

আয়হামের বাবা ফখরুল আলম বলেন, অ্যানেসথেসিয়া দিতে নিষেধ করার পরও সেটি শরীরে পুশ করেন ডাক্তার মুক্তাদির। এই মৃত্যুর দায় মুক্তাদিরসহ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সবার।

এর আগে গত ৮ জানুয়ারি রাজধানীর সাতারকুল বাড্ডার ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সুন্নতে খৎনা করাতে গিয়ে আয়ান নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়। ৫ বছরের আয়ানেরও অ্যানেসথেসিয়া দেওয়ার পর জ্ঞান ফেরেনি। সাত দিন লাইফ সাপোর্টে থাকার পর গত ৮ জানুয়ারি তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর