বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪ | ৫ বৈশাখ, ১৪৩১ | ৮ শাওয়াল, ১৪৪৫

মূলপাতা ক্যাম্পাস রাজনীতি

চবিতে ছাত্রলীগের সংঘর্ষের পর হল থেকে অস্ত্র উদ্ধার, আটক ৫


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম প্রকাশের সময় :২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ১১:২২ : পূর্বাহ্ণ
গতকাল শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে পুলিশের তল্লাশি। ছবি: সংগৃহীত
Rajnitisangbad Facebook Page

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের পর গতকাল শুক্রবার রাতে দুটি আবাসিক হলে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি। এ সময় হল থেকে বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার ও পাঁচজন বহিরাগতকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেল ও শুক্রবার রাতে দুই দফা সংঘর্ষে জড়ায় চবি ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক গ্রুপ সিএফসি ও সিক্সটি নাইন। এছাড়াও শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটায় বিজয় গ্রুপ ও চবি ছাত্রলীগের সভাপতির অনুসারীরা সংঘর্ষে জড়ায়।

এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে শুক্রবার রাত ১০টায় দুটি হলে তল্লাশি শুরু হয়। চলে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। তল্লাশি চলাকালে শাহ আমানত হল থেকে পাঁচ বহিরাগত ব্যক্তি ও শাহজালাল হল থেকে একটি রামদা, কয়েকটি লাঠি, লোহার রড ও স্টাম্প উদ্ধার করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নূরুল আজিম সিকদার বলেন, ‘আমরা পুলিশের সহযোগিতায় দুটি হলে তল্লাশি চালিয়েছি। সেখানে কয়েকটি কক্ষ থেকে হকিস্টিক, রামদা, লোহার রড, পাইপ, লাঠিসোঁটা, পাথর উদ্ধার করা হয়েছে। ডিবি পুলিশ পাঁচজন বহিরাগতকে আটক করেছে। তাদের থানায় নেওয়া হয়েছে। আমরা এখনো তাদের পরিচয় নিশ্চিত হইনি।’

বিবদমান সিক্সটি নাইন গ্রুপের দখলে আছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহজালাল হল। অন্যদিকে সিএফসি গ্রুপের দখলে আছে শাহ আমানত হল। যে হল থেকে বহিরাগতদের আটক করা হয়েছে সে হলটি নিয়ন্ত্রণ করেন সিএফসি গ্রুপের নেতা ও চবি শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মির্জা খবির সাদাফ।

জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যারা বহিরাগত হিসেবে আটক করা হয়েছেন তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে বেড়াতে এসেছিল। এরা সবাই সিএফসি গ্রুপের অনুসারীদের আত্মীয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে কারো আত্মীয় বেড়াতে আসা স্বাভাবিক।’

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার শাখা ছাত্রলীগের উপগ্রুপ সিক্সটি নাইন ও সিএফসি গ্রুপের কর্মীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এ সময় উভয় গ্রুপের নেতা-কর্মীদের হাতে ধারালো অস্ত্র দেখা যায়।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর