বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৯ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ১১ শাবান, ১৪৪৫

মূলপাতা আন্তর্জাতিক

ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে জাতিসংঘে প্রস্তাব পাস, ভোট দেয়নি বাংলাদেশ


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ১১:৩৪ : পূর্বাহ্ণ
ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন বন্ধে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বিশেষ অধিবেশনে ভোটাভুটি। ছবি: সংগৃহীত
Rajnitisangbad Facebook Page

ইউক্রেন যুদ্ধের এক বছর পূর্তির আগের দিন জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বিশেষ অধিবেশনে অনতিবিলম্বে রাশিয়াকে সৈন্য প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে একটি প্রস্তাব পাস হয়েছে। প্রস্তাবে ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার নিন্দা জানানো হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের সময় বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সাধারণ পরিষদের ১৯৩টি দেশের মধ্যে ১৪১টি দেশ প্রস্তাবের পক্ষে এবং সাতটি দেশ বিপক্ষে ভোট দেয়। ভোটদানে বিরত থেকেছে বাংলাদেশসহ ৩২ দেশ।

প্রস্তাবটি ১৪১ ভোটে প্রস্তাবটি পাস হয়। এতে ভোটদানে বিরত ছিল বাংলাদেশসহ ৩২টি দেশ।

প্রস্তাবের বিরুদ্ধে ভোটদাতা হিসাবে রাশিয়া যে ছয়টি দেশকে পাশে পেয়েছে সেগুলো হলো-বেলারুশ, উত্তর কোরিয়া, ইরিত্রিয়া, মালি, নিকারাগুয়া ও সিরিয়াকে।

বাংলাদেশের সঙ্গে ভোটদানে বিরত দেশের তালিকায় রয়েছে ভারত, চীন, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা, কিউবা, কঙ্গো, আর্মেনিয়া ও ভিয়েতনাম।

সাবেক সোভিয়েত রাশিয়াভূক্ত কিরগিজিস্তান, তাজিকিস্তান এবং উজবেকিস্তানও এ প্রস্তাবের ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ অবস্থানে ছিল।

দক্ষিণ এশিয়ার বাকি তিন দেশ আফগানিস্তান, নেপাল ও ভুটান প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছে। জাতিসংঘে জান্তাবিরোধী জাতীয় ঐকমত্যের সরকারের (এনইউজি) প্রতিনিধিত্ব করা মিয়ানমারের ভোট পড়েছে প্রস্তাবের পক্ষে।

২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলার পর থেকে এ পর্যন্ত রাশিয়ার বিরুদ্ধে জাতিসংঘে চারটি প্রস্তাব আনা হয়। যার একটিতে পক্ষে ভোট দিয়েছে বাংলাদেশ। অন্য প্রস্তাবগুলোতে ভোটদানে বিরত ছিল।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের এ ধরনের প্রস্তাব মানতে কোনো দেশ আইনত বাধ্য নয়। তবে, প্রস্তাবের রয়েছে রাজনৈতিক গুরুত্ব।

ব্যাপক সেনা সমাবেশ ঘটিয়ে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলার নির্দেশ দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। যুদ্ধে এখন পর্যন্ত দুই দেশ হারিয়েছে লাখো সেনা ও সামরিক সরঞ্জাম।

লড়াই দুই দেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকেনি, ইউক্রেনের হয়ে পরোক্ষভাবে সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপের মিত্র দেশগুলো। মস্কোর পক্ষে অবস্থান নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী চীন। এমন বাস্তবতায় পুরো বিশ্বে পড়ছে যুদ্ধের প্রভাব।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর