বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ২০ জিলকদ, ১৪৪৫

মূলপাতা বিনোদন

কোন ‘গডফাদারদের’ দেখে নিতে চাইলেন শরীফুল রাজ


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :৩ জানুয়ারি, ২০২৩ ৩:২৪ : অপরাহ্ণ
শরিফুল ইসলাম রাজ ও পরী মণি
Rajnitisangbad Facebook Page

ঢাকাই সিনেমার তারকা দম্পতি পরী মণি-শরিফুল ইসলাম রাজের বিচ্ছেদের বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য শোবিজ’ এ পরিণত হয়েছে।

এক বছরের ব্যবধানে প্রেম, বিয়ে, সন্তান এবং বিচ্ছেদও দেখে ফেলেছেন তারা। বাকি আছে শুধু আনুষ্ঠানিকতা।

এতোদিন নিজেদের মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে জনসম্মুখে কথা বলেছেন পরী মণি।

তবে এতো হইচইয়ের মধ্যেও দুইদিন পুরোপুরি নিশ্চুপ ছিলেন শরীফুল রাজ। পরে সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানান, ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে খুব বেশি প্রকাশ্যে কথা বলতে চান না তিনি।

ফেসবুকে পরীমনির পোস্ট করা ছবি ও স্ট্যাটাসকে ইঙ্গিত করে গতকাল সোমবার রাজ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘মাই বেডরুম ইজ প্রাইভেট, ভেরি প্রাইভেট। নট ফর পাবলিক। বাট আমার বেডরুম নিয়ে সবাই মজা নিচ্ছে এখন। পরী এখন যা করছে বা তার যা মন চায় করুক। তবে এটুকু স্পষ্ট করি, আমি কোনো ভুল করিনি।’

তবে, এই বক্তব্যের মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরেই কী এমন ঘটলো, যাতে ভিন্ন কিছুর ইঙ্গিত দিলেন বরাবরই ব্যক্তিগত বিষয়ে কথা বলা এড়িয়ে চলা রাজ।

আজ মঙ্গলবার ভোর ৪টা ৪৮ মিনিটে শরিফুল রাজ তার ব্যক্তিগত ফেসবুক প্রোফাইলে প্রথমে একটি পোস্ট করেন। যেখানে প্রকাশ পেয়েছে তার অস্থিরতার বিষয়। যেটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আগে কখনো দেখাননি তিনি।

রাজ তার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘হ্যালো গডফাদারস অ্যান্ড গং। আই ওয়ান্ট টু নো ইউ গাইজ। আই লাইভ ইন ঢাকা, আই উড লাভ টু চিয়ার্স।’

রাজের এমন পোস্টের পর নেটিজেনদের মনে উঁকি দিচ্ছে নানান প্রশ্ন।

ভক্তদের অনেকের জিজ্ঞাসা, তবে কি পরী মণি সংশ্লিষ্ট কারো কাছ থেকে হুমকি পেয়েছেন শরীফুল রাজ? সে প্রশ্নের উত্তর পেতে হয়তো অপেক্ষ করতে হবে আরও।

এর আগে রাজ-পরীর সাংসারিক সংকট নিয়ে নানা তথ্য সামনে এলেও বিয়ে বিচ্ছেদ নিয়ে তেমন কোনো ইঙ্গিত ছিল না। তবে গত ৩০ ডিসেম্বর রাত থেকে রাজ-পরী দম্পতির বিচ্ছেদের কথা ছড়াতে থাকে।

গত ৩১ ডিসেম্বর রাত ১২টা ৪০ মিনিটে ফেসবুকে ব্যক্তিগত একাউন্ট থেকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে পরী মণি লিখেন, ‘হ্যাপি থার্টিফার্স্ট এভরিওয়ান! আমি আজ রাজকে আমার জীবন থেকে ছুটি দিয়ে দিলাম এবং নিজেকেও মুক্ত করলাম একটা অসুস্থ সম্পর্ক থেকে। জীবনে সুস্থ হয়ে বেঁচে থাকার থেকে জরুরি আর কিছুই নেই।’

এরপর বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের তিনি জানান, ইতোমধ্যেই শরীফুল রাজের বাসা ছেড়েছেন তিনি। শিগগিরিই পাঠাবেন বিবাহবিচ্ছেদের নোটিশ।

এরপর নতুন বছরের প্রথম প্রহরে নিজের ফেসবুকে এক পোস্টে বিছানা-বালিশে ছোপ ছোপ রক্তের দাগওয়ালা দুটি ছবি পোস্ট করে ইংরেজি নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানান নায়িকা পরী মণি।

শিগগিরই সংবাদ সম্মেলনে আসার কথাও ঘোষণা দেন; কিন্তু পরে আরেক পোস্টে সংবাদ সম্মেলন করার অবস্থান থেকে সরে আসার কথা জানান পরী মণি।

এরপর গেলো রোববার বিকেলে ফেসবুকে আরেকটি পোস্টে পরী মণি লিখেন, ‘একটা সম্পর্কে পুরোপুরি সিরিয়াস বা খুব করে না চাইলে একটা মেয়ে, বাচ্চা নেওয়ার মতো এত বড় সিদ্ধান্ত নিতে পারে না কখনোই।’

তিনি আরও লিখেন, ‘আমার জীবনের সবটুকু চেষ্টা যখন এই সম্পর্কটাকে ঠিকঠাক টিকিয়ে রাখা তখনই আমাকে পেয়ে বসা হলো। যেন, শত কোটি বার যা ইচ্ছে তাই করলেও সব শেষে ওই যে আমি মানিয়ে নেই এটা রীতিমতো দারুণ এক সাংসারিক সূত্র হয়ে দাঁড়ালো। আমি জোর দিয়ে বলতে পারি আমাদের এই সম্পর্ক এত দিন আমার এফোর্টে টিকে ছিলো শুধু। কিন্তু বারবার গায়ে হাত তোলা পর্যায়ে পৌঁছালে কোনো সম্পর্কই আর সম্পর্ক থাকেনা। স্রেফ বিষ্ঠা হয়ে যায়।’

ছেলের মুখের দিকে তাকিয়ে সবকিছু সহ্য করেছেন জানিয়ে পরী মণি লিখেন, ‘রাজ্যের দিকে তাকিয়ে বার বার সব ভুলে যাই। সব ঠিক করার জন্যে পড়ে থাকি। কিন্তু তাতে কি আসলেই আমার বাচ্চা ভালো থাকবে! না । একটা অসুস্থ সম্পর্ক এত কাছে থেকে দেখে দেখে ও বড় হতে পারে না। তাই আমি, রাজ্য এবং রাজের মঙ্গল এর জন্যেই আলাদা হয়ে গেলাম।’

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর গোপনে বিয়ে করেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা পরী মণি ও অভিনেতা শরিফুল রাজ। মাত্র সাতদিনের পরিচয়ে তারা বিয়ে করেছিলেন।

২০২২ সালের ১০ জানুয়ারি সেই খবর প্রকাশ্যে আনেন তারা। একই দিন সন্তানধারণের বার্তাটিও দেন এ দম্পতি। এরপর ২২ জানুয়ারি পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে সারেন। একই বছরের ১০ আগস্ট তাদের ঘর আলো করে এসেছে পুত্রসন্তান-শাহীম মুহাম্মদ রাজ্য।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর