বুধবার, ৬ জুলাই, ২০২২ | ২২ আষাঢ়, ১৪২৯ | ৬ জিলহজ, ১৪৪৩

মূলপাতা জাতীয়

আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসা করতে আসেনি: প্রধানমন্ত্রী


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৫:৩০ : অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ’৭৫ পরবর্তী সরকারগুলো খাদ্য উৎপাদনের চেয়ে আমদানি করার ক্ষেত্রে বেশি উৎসাহিত ছিল। কেননা, তাহলে তাদের কিছু মানুষের ব্যবসা হবে। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসা করতে আসেনি। আমরা সেবক হিসেবে এসেছি। কাজেই, নিজেদের আত্মমর্যাদাশীল জাতি হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। কারো কাছে হাত পেতে চলতে চাই না।’

আজ (১৮ ফেব্রুয়ারি) বৃহস্পতিবার ‘জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস-২০২১’ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে খাদ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশে খাদ্যে ভেজাল রোধে ব্যবসায়ীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের অপরাধের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একদিকে আপনাদের তাদের (অসাধু ব্যবসায়ীদের) এ ধরনের অপরাধ সম্পর্কে বুঝাতে হবে এবং অন্যদিকে শক্ত হাতে এটি প্রতিরোধ করতে হবে। একই সাথে উভয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা অপরিহার্য।’

সরকার প্রধান বলেন, অতীতে দারিদ্র্যের কষাঘাতে জর্জরিত দেশের মানুষদের পুষ্টি সম্পর্কে সচেতনতা না থাকায় নুন মরিচ দিয়ে পেট ভরে চারটে ভাত খেয়ে ক্ষুধা নিবারণ করলেও এখন কিছুটা আমিষও ক্রয় করতে পারছে। মানুষের ক্রয় ক্ষমতা আরো যাতে বাড়ে, তাদের যেন আর্থিক সচ্ছলতা আসে সেজন্যই সরকার নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

খাদ্যে ভেজাল প্রতিরোধ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা ব্যবসা করছেন তারা দু’পয়সা বেশি আয়ের জন্য খাদ্যে ভেজাল দেয় বা পচা,গন্ধ, বাসী খাবার পরিবেশন করে থাকে। এভাবে নিজের লাভের জন্য মানুষের ক্ষতি আর করবেন না।’

শেখ হাসিনা দেশের জনগণের পুষ্টির চাহিদা পূরণে সুষম খাদ্য গ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করে এ ব্যাপারে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃর্পক্ষকে নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সুষম খাদ্য গ্রহণের বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করা একান্তভাবে জরুরি ও প্রয়োজন। এটা নিরাপদ খাদ্যের মধ্যেও পড়বে বলে আমি বিশ্বাস করি।’

দেশে একটি কেন্দ্রীয় খাদ্য পরীক্ষাগার স্থাপন করা হচ্ছে উল্লেখ করে প্রতিটি বিভাগীয় শহরেও একটি করে খাদ্য পরীক্ষারগার স্থাপনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, প্রতিটি বিভাগীয় শহরে খাদ্য পরীক্ষাগার স্থাপন করা জরুরি কারণ সরকার খাদ্য-প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পকে গুরুত্ব প্রদান করে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরি করছে।

খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবং কৃষিমন্ত্রী ড.আব্দুর রাজ্জাক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মোছাম্মাৎ নাজমানারা খানুম স্বাগত বক্তৃব্য রাখেন।


Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আরও খবর