বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ১৩ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা নির্বাচন

২৪ পৌরসভায় নৌকা-ধানের শীষে ভোটযুদ্ধ আজ


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :২৮ ডিসেম্বর, ২০২০ ১২:২২ : পূর্বাহ্ণ

আজ (২৮ ডিসেম্বর) সোমবার প্রথম ধাপে দেশের ২৪টি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা আর বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের ভোটের লড়াই। নির্বাচন আজ। করোনাভাইরাস মহামারীতে ভোটার উপস্থিতি নিয়ে সংশয়ের মধ্যে সোয়া ৬ লাখ ভোটারের ২৪টি পৌরসভায় ইভিএম মেশিনে ভোটগ্রহণ হবে।

পৌরসভার এই নির্বাচন এমন একটি সময়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে যখন এর আগের বেশ কয়েকটি নির্বাচন ও উপনির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল একেবারেই ন্যূনতম পর্যায়ে। যা নিয়ে খোদ ইসিকেই ‘বিব্রত’ হতে দেখা গেছে। ওইসব ভোটে প্রার্থীদের প্রচেষ্টা ছিল কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়ানোর। কিন্তু এতে খুব বেশি কাজ হয়েছে- এমনটা প্রতিফলিত হয়নি। এখন দেখার বিষয়, পৌরসভার ভোটযজ্ঞে ভোটাররা কতোটা আগ্রহ দেখান।

স্থানীয় সরকারের এ নির্বাচন ঘিরে এমনিতে যে উত্তাপ থাকে, এবার মহামারীর বাস্তবতায় ততটা নেই। তবে বরাবরের মতই ভোটের প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে মূলত ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকা আর বিএনপির প্রতীক ধানের শীষের মেয়র প্রার্থীর মধ্যে। করোনাকালে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড শূন্য পরিবেশে পৌর নির্বাচনে কিছুটা হলে রাজনৈতিক উত্তাপ ছাড়াবে।

২৪ পৌরসভায় মেয়র পদে প্রার্থী রয়েছেন ৯০ জন। সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২৭৭ জন এবং ৮৪৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছেন। প্রতিটি পৌরসভায় একজন মেয়র, তিনজন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও ৯ জন করে সাধারণ কাউন্সিলর নির্বাচিত হবেন।

শনিবার মধ্যরাতে আনুষ্ঠানিকভাবে এসব পৌরসভায় নির্বাচনী প্রচার শেষ করেছে প্রার্থীরা। এখন জয়পরাজয়ের হিসাব কষছেন তারা।

রোববার সকাল থেকেই কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটের সরঞ্জাম পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ভোট উপলক্ষে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

ইসি বলছে, ভোটের মাঠে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব), পুলিশ ও আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেটরাও থাকবেন। সুতরাং ভোটগ্রহণ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে বলে ইসির আশা।

ভোটের আগে কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচারণায় দুয়েকটি এলাকায় হামলা-সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ভোটের সময় পরিস্থিতি শান্ত থাকবে বলে আশা করছে নির্বাচন কমিশন।

ইসি সচিবালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর বলেন, ‘আমরা ভোটের জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। ভোটের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রয়েছে। আশা করি, ভোটেও তা বজায় থাকবে। এরপরও অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।’

যেসব পৌরসভায় ভোট হবে-পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ, দিনাজপুরের ফুলবাড়ী, রংপুরের বদরগঞ্জ, কুড়িগ্রাম, রাজশাহীর পুঠিয়া ও কাটাখালী, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর, পাবনার চাটমোহর, কুষ্টিয়ার খোকসা, চুয়াডাঙ্গা, খুলনার চালনা, বরগুনার বেতাগী, পটুয়াখালীর কুয়াকাটা, বরিশালের উজিরপুর ও বাকেরগঞ্জ, ময়মনসিংহের গফরগাঁও, নেত্রকোণার মদন, মানিকগঞ্জ, ঢাকার ধামরাই, সুনাগঞ্জের দিরাই, মৌলভীবাজারের বড়লেখা, হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ এবং চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড।

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে এবার চার ধাপে পৌর নির্বাচন করছে কমিশন। তার মধ্যে তিন ধাপে ১৫০টি পৌরসভার তফসিলও হয়েছে।

১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপের ৬১ পৌরসভায় ভোট হবে। এর মধ্যে ২৯টি পৌরসভায় ইভিএম এবং ৩২ পৌরসভায় ব্যালটে ভোটগ্রহণ হবে।

আর তৃতীয় ধাপে ৬৪টি পৌরসভায় ৩০ জানুয়ারি ভোটের তারিখ রেখে সর্বশেষ তফসিল দেয়া হয়েছে। বাকি যেসব পৌরসভা ফেব্রুয়ারির মধ্যে নির্বাচন উপযোগী হচ্ছে, সেসব এলাকায় চতুর্থ ধাপের ভোট হবে।


আরও খবর