মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২৪ মাঘ, ১৪২৯ | ১৫ রজব, ১৪৪৪

মূলপাতা আইন-আদালত

সিএমএম আদালতের বিচারককে ছুটি, বিক্ষোভ থেকে সরে এলেন আইনজীবীরা


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :২৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ৫:১৪ : অপরাহ্ণ

আইনজীবীদের বিক্ষোভের মুখে ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের বিচারক আসাদুজ্জামান নূরকে দুই দিনের ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। এরপর আইনজীবীরা বিক্ষোভ থেকে সরে আসেন। আইনজীবীকে কাঠগড়ায় হেনস্থা করার প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ করেছিলেন আইনজীবীরা।

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জুলফিকার হায়াত অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূরকে দুই দিনের ছুটিতে পাঠান।

ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ইকবাল হোসেন গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূরকে দুই দিনের ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তী সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত সাময়িকভাবে ওই আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। এ ছাড়া, বিচারককে প্রত্যাহারের বিষয়ে বার ও বেঞ্চের সমন্বয়ে আইন মন্ত্রণালয়ে লিখিতভাবে আবেদন পাঠানো হবে।

জানা গেছে, মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) রুবেল আহমেদ নামে এক আইনজীবী লকআপে আটকে রাখার অভিযোগ এনে বিচারকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মঙ্গলবার ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক বরাবর আবেদন করেন।

আবেদনে তিনি বলেন, “মঙ্গলবার আমি ওই আদালতে মামলা পরিচালনা করতে যাই। এ সময় সকাল সাড়ে ১০টায় বিচারক এজলাসে উঠবেন বলে জানান। কিন্তু ১১টার দিকেও বিচারক না ওঠায় বিষয়টি পেশকারের কাছে জানতে চাই। পরে আদালতের কার্যক্রম শুরু হলে বিচারক আমার মামলা না শুনে পরে আসতে বলেন। পরে গেলে আমাকে দুই ঘণ্টা লক আপে আটকে রাখেন এবং বলেন, ‘আমার সনদ বাতিল করে দেবেন এবং সব ম্যাজিস্ট্রেটকে বলে দেবেন, আমার মামলা না শোনার জন্য।’ আমি বিষয়টিতে চরম অপমান বোধ করছি এবং উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।”

এই ঘটনার প্রতিবাদে সংশ্লিষ্ট বিচারকের অপসারণ দাবি করে আজ সকাল থেকে সিএমএম আদালত চত্বরে বিক্ষোভ করেন আইনজীবীরা। তারা জানান, একজন আইনজীবীকে তার শুনানি না শুনে দুই ঘণ্টা আটকে রাখার ঘটনাটি গ্রহণযোগ্য নয়। এ ধরনের ঘটনা আদালতের বিচারকাজকে ব্যাহত করবে।


আরও খবর