শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ১৪ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা দেশজুড়ে

রাজধানীতে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে যে উদ্যোগ নিলেন দুই মেয়র


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :২৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ৬:১৯ : অপরাহ্ণ

রাজধানীতে ঢুকবে না জেলার বাস। ঢাকার বাইরে বিরুলিয়া, হেমায়েতপুর, কাঁচপুর ও কেরানীগঞ্জে হবে আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল। আর ঢাকা শহরের গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল সিটি টার্মিনাল হিসেবে পরিচালিত হবে। সম্ভাব্য স্থানগুলো পরিদর্শন শেষে ঢাকার দুই মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস ও মো. আতিকুল ইসলাম জানান, রাজধানীতে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে আগামী বছরই কাজ শুরু হবে।

ঢাকার রাস্তায় যানজট কমাতে অনেক আগেই বাসরুট পুনর্বিন্যাসের পরিকল্পনা নেয় নগর কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘদিন ঝুলে থাকার পর অবশেষে এ লক্ষ্যে ঢাকার বাইরে চারটি আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল করার কথা ভাবছে দুই সিটি কর্পোরেশন। বিরুলিয়ার বাটুলিয়া, হেমায়েতপুরের জাদুরচর, কেরানীগঞ্জের টেগোরিয়া ও কাঁচপুর-এই ৪টি স্থানকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হয়েছে বলে জানান ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

মেয়র তাপস বলেন, বহির্বিশ্বে দেখা যায়, ইন্টারসিটি বাস বা গণপরিবহনগুলো শহরের মধ্যে প্রবেশ করে না। কিন্তু আমাদের শহরের মধ্যে মহাখালী ও সায়েদাবাদ আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সিটি বাস টার্মিনাল আমাদের কার্যকর নেই। যেখানে–সেখানে সিটি বাস রাস্তার ওপরে থেকে যানজট ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে।

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য হলো ঢাকার শহরের উপর থেকে যানবাহনের চাপ কমিয়ে নিয়ে আসা। এখানে যত্রতত্র ভাবে রাস্তার উপরে সিটি বাসগুলো থাকে, এতে যানজট সৃষ্টি হয়। সব কিছু মিলিয়ে সামগ্রিক শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতেই আমাদের এই কার্যক্রম।

ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, শহরের বাস শহরের ভেতর চলবে। বিভিন্ন জেলার বাস ঢাকার আশপাশে নির্ধারিত বাস টার্মিনালে এসে থামবে। এতে শহরের মধ্যে বাস প্রতিযোগিতা করে চালানো বন্ধ হবে। ঢাকায় আন্তঃজেলা কোনো বাস প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। আগামী বছরই এ কাজের মূল পরিকল্পনায় হাত দেয়া হবে।


আরও খবর