রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪ | ৮ বৈশাখ, ১৪৩১ | ১১ শাওয়াল, ১৪৪৫

মূলপাতা আন্তর্জাতিক

অত্যাচারের নতুন পন্থা চীনের, সফটওয়্যারের মাধ্যমে শনাক্ত হবে উইঘুর মুসলিমরা


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :১১ ডিসেম্বর, ২০২০ ৩:৪০ : অপরাহ্ণ
Rajnitisangbad Facebook Page

উইঘুর মুসলিম চিহ্নিত করতে চীন দেশটির বিখ্যাত তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানি হুয়াই-এর সাহায্য নিয়ে একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছে। এর মাধ্যমে উইঘুরদের মুখ দেখেই খুব সহজে শনাক্ত করা যাবে।

উইঘুর মুসলিম অধ্যুষিক অঞ্চলের আগের নাম ‘পূর্ব তুর্কিস্তান’। এটির বর্তমান জিনজিয়াং প্রদেশে। চীন সরকার এ অঞ্চলকে জিনজিয়াং নাম দিয়েছে। ৯০ লাখ মুসলিম অধ্যুষিত এ অঞ্চলের প্রায় ১০ লাখ উইঘুর নারী-পুরুষ বন্দি রয়েছে সুরক্ষিত বন্দি শিবিরে। চীন সরকার এ বন্দি শিবিরকে ‘চরিত্র সংশোধনাগার’ নাম দিয়েছে। চীন সরকারের দাবি, উশৃংঙ্খল অবস্থা থেকে নিরাপদ ও সুরক্ষা দিতেই তাদের এ কার্যক্রম। চরিত্র সংশোধনাগারের নামে চীন সরকার এ সব মুসলিমদের প্রতি চরম অত্যাচার ও নির্যাতন করছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে তা উঠে এসেছে।

জানা গেছে, উইঘুরদের যাতে ভিড়ের মধ্যেও খুব সহজে শনাক্ত করা যায় তার জন্য চিনের বিখ্যাত তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানি হুয়াওয়ে একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছে। যার সাহায্যে মুখ দেখেই উইঘুরদের শনাক্ত করা যাবে। এর সাহায্যে ধর্মপ্রাণ উইঘুর মুসলিমদের বেছে বেছে জেলে ঢোকানো হচ্ছে। এমনকী তাদের সম্পর্কে একটি বিরাট তথ্য ভাণ্ডারও তৈরি করা হচ্ছে। যার ফলে ইচ্ছা করলেই ওই মানুষগুলিকে যখন খুশি বন্দিশিবিরে বা বাইরে রাখতে পারবে তারা।

চীনের উত্তর পশ্চিমের প্রদেশ জিনঝিয়াংয়ে উইঘুরদের বাস। সেখানেই নানা বিধি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তাদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে চীনের বিরুদ্ধে । তবে চীন এই অভিযোগের কথা বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে চীন।আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের বিভিন্ন সূত্র জানায়, জিনজিয়াং প্রদেশে বসবাসরত উইঘুর মুসলমানদের ওপর চীন সরকারের বর্বরতা সীমা ছাড়িয়ে গেছে। মুসলিমদের বন্দি করা এখনো থামেনি।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর