বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ১২ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা আইন-আদালত

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর: দুই ছাত্র ৫ দিন ও শিক্ষকরা ৪ দিনের রিমান্ডে


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :৮ ডিসেম্বর, ২০২০ ১:০৫ : অপরাহ্ণ

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুরের মামলার চার আসামি দুই ছাত্রের পাঁচ দিন ও দুই শিক্ষকের চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) কুষ্টিয়া চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত শুনানি শেষে তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বেলা ১১টার দিকে শুনানির জন্য তাদের পুলিশি প্রহরায় আদালতে হাজির করা হয়।

এর আগে সোমবার সরাসরি ভাঙচুরের সাথে জড়িত দুই মাদরাসা ছাত্র মিঠুন ও নাহিদের ১০ দিন ও সহযোগী দুই শিক্ষক আল আমিন ও ইউসুফ আলীর ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। আদালত আজ শুনানির দিন ধার্য করে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও কুষ্টিয়া মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক নিশিকান্ত দাস জানান, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় আসামিদের আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করেছি। দুই মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর ১০ দিন এবং দুই শিক্ষকের সাত দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি শেষে দুই ছাত্রের পাঁচ দিন ও দুই শিক্ষকের চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) রাত ২টা ১৬ মিনিটে অভিযুক্ত আসামি মাদরাসা ছাত্র সবুজ ইসলাম ওরফে নাহিদ ও আবু বক্কর ওরফে মিঠুন হাতুড়ি দিয়ে কুষ্টিয়া শহরের ৫ রাস্তার মোড়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর করে। পরে তাদের ভাষ্যমতে সহযোগিতা করার অপরাধে একই মাদরাসার শিক্ষক আল আমিন ও ইউসুফ আলীকে গ্রেপ্তার ও এই মামলার আসামি করা হয়। এরা কুষ্টিয়া শহরের জুগিয়া পশ্চিমপাড়ার ইবনি মাসউদ মাদরাসার ছাত্র শিক্ষক।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় পরদিন শনিবার রাতে কুষ্টিয়া পৌরসভার সচিব কামাল উদ্দীন বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেছেন। ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় আটক চার জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।


আরও খবর