শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ১১ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ১৩ শাবান, ১৪৪৫

মূলপাতা জাতীয়

মৌলবাদী গোষ্ঠীকে ফণা তুলতে দেওয়া যাবে না: তথ্যমন্ত্রী


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ৭:৫৩ : অপরাহ্ণ
Rajnitisangbad Facebook Page

বাংলাদেশে মৌলবাদী গোষ্ঠী ঘাপটি মেরে বসে আছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশে মৌলবাদী অপশক্তিকে একটি রাজনৈতিক দল বা গোষ্ঠী পৃষ্ঠপোষকতা দেয়। তাদের রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতায় মৌলবাদীরা বিভিন্ন সময় ফণা তোলার অপচেষ্টা করে। এদের কোনোভাবেই ফণা তুলতে দেওয়া যাবে না।

‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর হলো, এতে করে মৌলবাদের উত্থান হচ্ছে কি না?’- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আজ সোমবার (৭ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ ক্লাইমেট জার্নালিস্ট ফোরামের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন তথ্যমন্ত্রী। সভা শেষে সাংবাদিকেদর বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। সভায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানও উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ওপর আঘাত হেনেছে, যারা ভাস্কর্য নিয়ে কথা বলে, এরা তাদের অনুসারী। যারা ফতোয়া দিয়েছিল মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধারা সব কাফের, নারীরা হচ্ছে গণিমতের মাল তাদের ভোগ করা যাবে, এ ফতোয়া যারা দিয়েছিল তাদের অনুসারী হলো আজকে যারা ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়া দেন। তারা যে ফতোয়া দেয় সে অনুযায়ী তাদের ছবিওতো রাখার নিয়ম নেই, ছবি তুলতে পারবে না, তাদের বাবা-মারও ছবি রাখতে পারবেন না। সেটাতো তারা বর্জন করছেন না।

তিনি বলেন,স্বাধীন বাংলাদেশে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টানদের রক্ত স্রোতের বিনিময়ে যে দেশ রচিত হয়েছে। সেখানে এ মৌলবাদ অপশক্তির কোনো স্থান হবে না।

বিএনপিতে কোনো গণতন্ত্র নেই উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, যারা অতিতে গণতন্ত্র হত্যা করেছিল, যাদের জন্ম অগণতান্ত্রিকভাবে, ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে তারা যখন গণতন্ত্রের কথা বলে তখন গণতন্ত্রমনা মানুষ ও দেশের মানুষ হাসে। আর মির্জা ফখরুল ইসলাম তাদেরই একজন। জিয়াউর রহমান ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়েছেন। আর যে সমস্ত রাজনীতিবিদ সে সময় ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট নিতে সমবেত হয়েছিলেন আমি যথেষ্ট সম্মান রেখে বলছি তাদের মধ্যে একজন হলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব। তারা হচ্ছেন দল ছুট, রাজনীতির হাটে বিক্রি হওয়া রাজনীতিবিদ। তারা যখন গণতন্ত্রের কথা বলে তখন মানুষের মুখে হাসি পায়। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হচ্ছেন হত্যা, দুর্নীতির অভিযোগে সাজা প্রাপ্ত আসামি।

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর