রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২ | ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ২ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা দেশজুড়ে

বিদ্যুৎকেন্দ্রে আগুন লাগার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

অন্ধকারাচ্ছন্ন সিলেট, বিদ্যুৎ কখন আসবে কেউ জানে না


রাজনীতি সংবাদ ডেস্ক প্রকাশের সময় :১৭ নভেম্বর, ২০২০ ৮:১৮ : অপরাহ্ণ

সিলেটের কুমারগাঁওয়ে বিদ্যুৎকেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলার বেশকিছু অংশে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ায় সন্ধ্যার পর থেকে ঘুটঘুটে অন্ধকারে আচ্ছন্ন রয়েছে সিলেট নগরী।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকালে ১১ টা ২০ মিনিটের দিকে সিলেটের কুমারগাঁও বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এরপর ফায়ার সার্ভিসের ৭ টি ইউনিটের প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টার পর দুপুর সোয়া ১২ টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে।

তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও সিলেট বিভাগে ফের কখন বিদ্যুত সংযোগ দেয়া হবে সে বিষয়ে কিছুই বলতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।

অগ্নিকান্ডের পর পুরো সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সকাল সাড়ে ১১টা থেকে সিলেট মহানগর, আশপাশের বিভিন্ন এলাকা, ছাতক ও সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। বিদ্যুৎ না থাকায় নগরবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বাসা-বাড়িতে পানির জন্য মানুষ অবর্ণনীয় কষ্টে পড়েছেন। সিলেট বিভাগের দুই জেলা সিলেট ও সুনামগঞ্জে আবার কখন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে সে বিষয়ে কিছুই বলতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।এর ফলে প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষাধিক বিদ্যুতের গ্রাহক দুর্ভোগে পড়েছেন।

বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি (পিজিসিবি) সিলেটের ইনচার্জ মোস্তাকিম বিল্লাহ জানান, সন্ধ্যার পর সুনামগঞ্জ ও ছাতকে বিকল্প ব্যবস্থায় ফেঞ্চুগঞ্জ গ্রিড উপকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়েছে।

তবে সিলেট নগর ও আশপাশের এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ কখন স্বাভাবিক হবে এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেননি তিনি।

আগুন লাগার কারণ এখনো জানাতে পারেননি পিডিবির কর্মকর্তারা। জানা যায়নি ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও। তবে দুটি ট্রান্সফরমার পুড়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন পিডিবির প্রধান প্রকৌশলী মোকাম্মেল হোসেন।

তিনি বলেন, একটি সাব গ্রেড থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে পরে মূলগ্রেডে চলে যায়। তবে আগুনে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সেটি এখনই বলা যাচ্ছে না।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, আগুনে ৭০ কোটি টাকা মূল্যের ২৫/৪১ এমবিএ দুটি ট্রান্সফর্মার পুড়ে গেছে। সেই সঙ্গে ৩৩ কেভি ফিডার ও বার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তদন্ত কমিটি গঠন
এ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রিড অব কোম্পানি। তবে এ কমিটিতে সিলেটের কোন কর্মকর্তাকে রাখা হয়নি।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন ও বিতরণ অঞ্চল সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার মোকাম্মেল হোসেন জানান, পাওয়ার গ্রিড অব কোম্পানি তত্ত্বাবধানে করা এ কমিটিতে মোট ৪ জন কর্মকর্তা রয়েছেন। এর মধ্যে শ্রীমঙ্গলের একজন নির্বাহী প্রকৌশলীকে আহ্বায়ক করা হয়েছে। এছাড়াও আরও ৩ জন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা আছেন কমিটিতে।

কীভাবে আগুনের সূত্রপাত এবং কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা নির্ণয় করতেই এ কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর