শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ১৪ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা বিএনপি

বাসে আগুনের পেছনে সরকারের স্যাবোটিয়ার এজেন্টস: ফখরুল


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :১৪ নভেম্বর, ২০২০ ১২:৫৯ : পূর্বাহ্ণ

রাজধানীতে ‘হঠাৎ’ বাসে অগ্নিকাণ্ডের পেছনে ‘সরকারের স্যাবোটিয়ার এজেন্টস’-কে দায়ী করেছেন রাজপথের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে তিনি এমন দাবি করেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এটা (নাশকতা) অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা— যে ঘটনা গতকাল ঘটেছে। শুধু দুঃখজনক না, ন্যাক্কারজনক। আমি তীব্র ভাষায় এটার নিন্দা করছি। আমরা যারা রাজনীতি করি, তারা সব সময় শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক পদ্ধতি চিন্তা-ভাবনা করেই রাজনীতি করি।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এগুলো (নাশকতা) কখন হয়? দেশে যখন গণতান্ত্রিক কোনো স্পেস থাকে না— আপনি একটা মিছিল করতে পারবেন না, আপনি কোথাও গিয়ে একটা সভা করতে পারবেন না। এগুলো অনেক দিন ধরে হয়ে আসছে। যার ফলে যারা দুষ্কৃতকারী, তারা সুযোগগুলো নিয়ে এ ধরনের কাজ করে থাকে।

তিনি বলেন, ‘প্রথমে এক-এগারোর সরকারের লক্ষ্য ছিল মাইনাস টু। পরবর্তীতে তারা মাইনাস ওয়ান বাস্তবায়ন করেন। আর তাদের এ কাজে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন আওয়ামী লীগ নেতারা। সে সময় শেখ হাসিনা বলেছিলেন, তিনি ক্ষমতায় এলে এক-এগারোর সরকারের সকল কাজের বৈধতা দেবেন। সে জন্যই ক্ষমতায় এসেই তিনি বিএনপিকে নির্মূল করতে থাকেন।’

‘যা গণতন্ত্রের জন্য ভালো ফল আনেনি, আনবেও না। সুপরিকল্পিতভাবে গণতন্ত্রকে হরণ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়। সরকার নির্বাচন ব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করে যাতে করে সমগ্র গণতন্ত্র বাধাগ্রস্ত হয়। গণতন্ত্র না থাকলে জবাবদিহি থাকে না। এটাই বড় সমস্যা। কারও কোনো জবাবদিহি নেই’ যোগ করেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপি গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার ক্ষেত্রে অন্তরায়- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এ দেশের গণতন্ত্রের প্রধান অন্তরায় আওয়ামী লীগ। বাকশাল গঠন করে তারাই এ দেশের গণতন্ত্রের কবর দিয়েছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া মানসিকভাবে রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন। আমাদের রাজনীতিতে তার প্রভাব রয়েছে। তিনি রাজনীতি থেকে যাননি, যাবেন না। তার অস্তিত্ব গভীরভাবে দেশের জনগণের মাঝে আছে।’


আরও খবর