বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪ | ১০ শ্রাবণ, ১৪৩১ | ১৮ মহর্‌রম, ১৪৪৬

মূলপাতা জাতীয়

বাংলা ব্লকেড: দেশের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, মহাসড়ক, রেলপথ অবরোধ


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :১০ জুলাই, ২০২৪ ১২:৩৪ : অপরাহ্ণ
ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ছবি: সংগৃহীত
Rajnitisangbad Facebook Page

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন ব্যানারে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ বুধবার সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষার্থীরা। ঢাকার শাহবাগ, ইন্টারকন্টিনেন্টাল মোড়, চানখারপুল, সায়েন্সল্যাব মোড়, আড়ারগাঁও এবং ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়া, পাবনা, গাজীপুর, খুলনা, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন জেলায় সড়ক ও রেলপথ অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

সকালে রাজধানীর সায়েন্সল্যাব এলাকার সড়ক অবরোধ করেন ঢাকা কলেজ ও এর আশপাশের প্রতিষ্ঠানের শত শত শিক্ষার্থী। তারা সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সায়েন্সল্যাব মোড়ে অবস্থান নেন।

বেলা সোয়া ১১টার দিকে শাহবাগ মোড়ের সড়ক অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। এতে এই এলাকায় সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে ।

শিক্ষার্থীরা এ সময় ‘কোটা নয়, যোগ্যতায় চাকরি হোক’, ‘সারা বাংলায় খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে’ ‘মেধাভিত্তিক নিয়োগ চাই, প্রতিবন্ধী ছাড়া কোটা নাই’, ‘শিক্ষার্থীদের অ্যাকশন, ডাইরেক্ট অ্যাকশন’, ‘মেধাবীদের কান্না, আর না’সহ নানান স্লোগান দেন।

বাংলা ব্লকেড: দেশের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, মহাসড়ক, রেলপথ অবরুদ্ধ

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বাস, প্রাইভেটকার, রিকশাসহ সব ধরনের পরিবহন আটকে দিলেও অ্যাম্বুলেন্সগুলো ছেড়ে দিচ্ছে।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ডেইরিগেট এলাকায় অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এরপর শিক্ষার্থীরা বিভক্ত হয়ে মহাসড়কের প্রান্তিক গেট ও এমএইচ হল সংলগ্ন গেট অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন।

 

চট্টগ্রাম নগরীর টাইগারপাস এলাকায় রেলপথ অবরোধ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বিক্ষোভকারীরা রেললাইনে অবস্থান নিয়ে কোটা পদ্ধতি পুনর্বহালের প্রতিবাদে স্লোগান দিচ্ছেন।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার ওসি এসএম সহিদুল ইসলাম জানান, সকাল ১১টার দিকে শিক্ষার্থীরা রেললাইন অবরোধ করেন। অবরোধের কারণে ঢাকা ও দেশের অন্যান্য অংশের সঙ্গে চট্টগ্রামের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আমরা ঘটনাস্থলে রয়েছি এবং ট্রেন যোগাযোগ পুনরায় চালু করার চেষ্টা করছি।

আরও পড়ুন: মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে হাইকোর্টের রায় স্থগিত

মন্তব্য করুন
Rajnitisangbad Youtube


আরও খবর