বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ১২ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪

মূলপাতা আঞ্চলিক রাজনীতি

চসিক নির্বাচনের পর চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন

ভারমুক্ত হচ্ছেন না মাহতাব


রাজনীতি সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশের সময় :১১ নভেম্বর, ২০২০ ৫:৪৪ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ভারমুক্ত হচ্ছেন না। সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করবে কেন্দ্র। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পর নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল একটি সূত্র থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

গত ১০ সেপ্টেম্বর নগর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভায় সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীকে পরবর্তী সম্মেলন পর্যন্ত ভারমুক্ত করার প্রস্তাব গৃহীত হয়। সভায় কমিটির সকল সদস্য এই প্রস্তাবে সম্মতি জানান।

প্রস্তাবটি চিঠি দিয়ে কেন্দ্রে পাঠানো হবে বলে নগর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির ওই সভায় জানানো হয়েছিল।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চট্টগ্রাম মহানগর শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীকে ভারমুক্ত করার কোনো চিঠি সেখানে যায়নি।

নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় এ বিষয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

নগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক রাজনীতি সংবাদকে বলেন, ‘সভায় প্রস্তাবিত সিদ্ধান্তের চিঠি কেন্দ্রে পাঠানোর দায়িত্ব সংগঠনের সাধারণ সম্পাদকের। তিনি চিঠি পাঠিয়েছেন কিনা সেটা আমি জানি না।’

চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় একজন দায়িত্বশীল নেতা রাজনীতি সংবাদকে জানান, সাংগঠনিকভাবে সম্মেলন ছাড়া ভারপ্রাপ্ত সভাপতিকে ভারমুক্ত করার কোনো সুযোগ নেই। দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সম্মেলনের মাধ্যমে কাউন্সিলরদের সর্বসম্মতিক্রমে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ভারমুক্ত হতে পারেন।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন রাজনীতি সংবাদকে বলেন, ‘চট্টগ্রাম মহানগর শাখার কোনো চিঠি কেন্দ্রে আসেনি। আর সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ভারমুক্ত হওয়ার সিদ্ধান্ত হবে সম্মেলনে। সম্মেলনে কাউন্সিলররা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীকে ভারমুক্ত করতে চাইলে কেন্দ্রের কোনো আপত্তি থাকবে না। চসিক নির্বাচনের পরই চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।’

নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুর পর ২০১৭ সালের ২৫ ডিসেম্বর মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীকে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেন দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি সংগঠনের প্রথম সহ-সভাপতি ছিলেন।

মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর প্রয়াত জহুর আহমদ চৌধুরীর মেজ ছেলে।

২০০৬ সালের ২৭ জুন সম্মেলনের মাধ্যমে নগর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ কমিটি গঠিত হয়েছিল। কমিটিতে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে সভাপতি এবং কাজী ইনামুল হক দানুকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছিল।

নগর আওয়ামী লীগের তিন বছরের জন্য গঠিত বর্তমান কমিটি ৪ বছর আগে মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে। মহিউদ্দিন চৌধুরীকে সভাপতি ও আ জ ম নাছির উদ্দীনকে সাধারণ সম্পাদক করে ২০১৩ সালের ১৩ নভেম্বর ৭১ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল।

নগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীকে ভারমুক্ত করার প্রস্তাব গৃহীত হলেও পরে এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সংগঠনটির অনেক নেতা।

নগর আওয়ামী লীগের দুই নম্বর সহসভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী রাজনীতি সংবাদকে বলেন, ‘নিয়মানুযায়ী ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সম্মেলন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন। সম্মেলনে কাউন্সিলররা সর্বসম্মতিক্রমে প্রস্তাব করলে তিনি সভাপতি হবেন। কিন্তু সম্মেলনের আগে ভারপ্রাপ্ত সভাপতিকে ভারমুক্ত করার যে প্রস্তাব করা হয়েছে সেটা কোনোভাবেই সাংগঠনিক নিয়মের মধ্যে পড়ে না।’

নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী মনে করছেন, তাঁকে ভারপ্রাপ্ত থেকে ভারমুক্ত করা হবে কিনা সেটা প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ইচ্ছার ওপর নির্ভর করছে।

রাজনীতি সংবাদকে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ভালো মনে করলে আমাকে ভারমুক্ত করবেন, আর ভালো মনে না করলে চেয়ার ছেড়ে দিতে বলবেন। কিন্তু আমি এমন কোনো কাজ করিনি যে প্রধানমন্ত্রী আমাকে সভাপতির দায়িত্ব দিবেন না। আমি কোনো দিক দিয়ে ব্যর্থতার পরিচয় দিইনি। আমি দৃঢ় আশাবাদী।’


আরও খবর